ঋষি কাপুর নীতু সিংয়ের ৪০ বছর আগের সেই বিয়ের কার্ড,ভাইরাল

ঋষি কাপুর নীতু সিংয়ের – ৪৬ বছর আগের কথা, ‘জাহরিলা ইনসান’ ছবির শ্যুটিং করতে গিয়েই নীতু সিং এর সঙ্গে আলাপ হয়েছিল ঋষি কাপুরের। সেখানেই নীতুর প্রেমে পড়েছিলেন ঋষি।

বেশ কয়েকবছর আগে পুরনো সেই কথা শেয়ার করতে গিয়ে ঋষি কাপুর এক সাক্ষাৎকারে বলেছিলেন, ”আমার মনে আছে, সেসময় আমার তৎকালীন প্রেমিকার সঙ্গে ঝগড়া হয়ে গিয়েছিল। আমি ওকে ফিরে পাওয়ার জন্য টেলিগ্রাম করতে চাইছিলাম, সেটা লিখতে আমি নীতুর সাহায্য চাই।

তার ঠিক পরে আমি বুঝতে পারলাম, নীতু আমার জীবনে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ একজন। আমি যখন ইউরোপে শ্যুটিং করতে গেল, তখন নীতুর কথা খুব মনে পড়ছিল। তখন আমি ইউরোপ থেকে কাশ্মীরে নীতুকে টেলিগ্রাম করলাম, যে আমি ওর কথাই ভাবছি।”

অন্যদিকে নীতু কাপুর পরবর্তীকালে এক সাক্ষাৎকারে বলেছিলেন, ”ঋষির সঙ্গে প্রথম আলাপ কখনওই সুখকর ছিল না। ওর সবেতেই কথা বলা অভ্যাসে লোকজন বিরক্ত হয়ে যেত।

এমনকি আমার মেকআপ ও পোশাক নিয়ে কথা বলতো। আমি ভীষণই বিরক্ত হয়েছিলাম। আমি ভাবলাম এই ছোকরা সকলকে বিরক্ত করে দেয়। আমি খুব রেগে গিয়েছিলাম। তখন অবশ্য আমায় বয়স খুবই কম ছিল।”

যদিও এই নীতুই পরবর্তীকালে ধীরে ধীরে রাজ কাপুরের ছোট ছেলে প্রেমে পড়ে যান। তবে নীতু কাপুর জানিয়েছিলেন, তিনি যখন ঋষির সঙ্গে প্রথম ডেটে গিয়েছিলেন, তখন তাঁর মা সঙ্গে তাঁর তুতো ভাইকে পাঠিয়েছিলেন। নীতুর কথায়, পরে ডেটে একদিন ডেটে গিয়ে হঠাৎ ঋষি তাঁকে প্রশ্ন করে বসেন,

”বিয়ে নিয়ে কী ভাবছো?” উত্তরে নীতু বলেছিলেন, ”বিয়ের জন্য ছেলে খুঁজছি।” এমন জবাবে অবাক হয়ে ঋষি কাপুর বলেছিলেন, ”তাহলে আমি?” ব্যস, বিয়েটা হয়েই গেল। ঋষি কাপুর ও নীতু সিং-এর।

নীতু সিং

সালটা ১৯৮০ সালের ২৩ জানুয়ারি, মুম্বইয়ের চেম্বুরে আর কে স্টুডিওতে বয়েছিল ঋষি কাপুরের বিয়ের আসর। সম্প্রতি, ঋষি কাপুর-নীতু সিংয়ের বিয়ের কার্ড সোশ্যাল মিডিয়ায় উঠে এসেছে।

সেসময় বিয়ের পর কাপুর পরিবারের মেয় কিংবা বউদের অভিনয় করার অনুমতি সেসময় দেওয়া হত না বলেই শোনা যায়। তবে নীতু কাপুরের কথায়, ঋষি কাপুর তাঁকে অভিনয় করতে কখনও বাধা দেননি। নীতুর কথায়, ”টানা ১৫ বছর কাজ করে আমি ক্লান্ত হয়ে গিয়েছিলাম। তাই অভিনয় থেকে সরে আসি নিজের ইচ্ছাতেই। সেসময় আমি এক্কেবারে ছিমছাম জীবনই চেয়েছিলাম।”

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*